ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামের নৌ ঘাঁটিতে বোমা বিস্ফোরণ: ৫ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশ: ১৭ আগস্ট, ২০২২ ৮:১৬ : পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামের নৌবাহিনীর ঈশা খাঁ ঘাঁটিতে বোমা হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় পাঁচ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইবুন্যালের বিচারক আবদুল হালিম এই রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতরা হলেন- আবদুল মান্নান, রমজান আলী, বাবলু রহমান, আবদুল গাফফার ও এম সাখাওয়াত হোসেন। তাদের মধ্যে সাখাওয়াত হোসেন।

 

রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মনোরঞ্জন দাশ জানান, ২০১৫ সালের ১৮ ডিসেম্বর শুক্রবার জুমার নামাজের সময় ইশা খাঁ ঘাঁটির ভেতরের মসজিদে পরপর দুটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে নৌ কর্মকর্তাসহ ২৪ জন আহত হন। এই ঘটনার ৯ মাস পর ৩ সেপ্টেম্বর নৌবাহিনীর নেভাল প্রভোস্ট মার্শাল কমান্ডার এম আবু সাঈদ সন্ত্রাসবিরোধী ও বিস্ফোরক আইনে মামলা দায়ের করেন। ২২ মাস তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে অভিযাগপত্র দাখিল করে। মামলায় ২৪ জনকে সাক্ষী করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষ ১৭ জন সাক্ষী আদালতে হাজির করে। তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত রায় ঘোষণা করে।

বিচারিক আদালতে দাখিল করা অভিযোগপত্রের ভাষ্য অনুযায়ী, জামায়াতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশের  (জেএমবি) চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান সমন্বয়ক রাইসুল ইসলাম খান নোমান ওরফে নাফিস ওরফে ফারদিনের নেতৃত্বে নৌ ঘাঁটির মসজিদে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পরবর্তীতে ২০১৬ সালের ৩ এপ্রিল ফারদিন বগুড়ার শেরপুরে গ্রেনেড তৈরির সময় বিস্ফোরণে মারা যায়। ফলে বিচারিক কার্যক্রম থেকে বাদ যায় ফারদিনের নাম।

Print Friendly and PDF
ব্রেকিং নিউজঃ