ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাড়াবাড়ি করেছে, দাবি অধ্যক্ষের

প্রকাশ: ২০ এপ্রিল, ২০২২ ৩:০০ : অপরাহ্ণ

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাড়াবাড়ি করেছে। তারা কলেজ ক্যাম্পাসে টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। এতে শিক্ষকসহ দুই শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের আরো দায়িত্বশীল আচরণ করা উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা কলেজ অধ্যক্ষ এ টি এম মইনুল হোসেন।

 

আজ বুধবার বিকেলে অধ্যক্ষ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘পুলিশের রাবার বুলেট ও টিয়ার শেলের আঘাতে বেশ কয়েকজন শিক্ষক আহত হয়েছেন। কলেজ ক্যাম্পাসকে অনিরাপদ করে তোলা হয়েছে। আমরা এই অনিরাপত্তার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তবে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে কি না সেটা পরবর্তী সময়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ‘

সংঘর্ষে আহতের বিষয়ে অধ্যক্ষ মইনুল হোসেন বলেন, ‘সংঘর্ষে শিক্ষক, শিক্ষার্থী মিলিয়ে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। এর মধ্যে মোশাররফ নামের এক শিক্ষার্থী স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে রয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো বলে জানতে পেরেছি। রজত ও কানন নামে আরো দুজন শিক্ষার্থী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের অবস্থাও উন্নতির দিকে। আমরা কলেজের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক খোঁজ রাখছি। ইতোমধ্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি আহতদের দেখতে গিয়েছিলেন। চিকিৎসার সব ব্যবস্থার নিশ্চয়তা তিনি দিয়েছেন। ‘

হল বন্ধের সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ঢাকা কলেজ ও হল বন্ধের সিদ্ধান্তটি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই সিদ্ধান্তটি ঢাকা কলেজ বাস্তবায়ন করেছে মাত্র। হল খোলা বা বন্ধের সিদ্ধান্ত কলেজ নিজে থেকে নিতে পারে না। সেটার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত লাগবে। তবে এখন পর্যন্ত নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। বন্ধের সিদ্ধান্তই বহাল রয়েছে। ছাত্রদের বেশ কিছু সমস্যা থাকায় হল ছাড়তে সময় লাগছে। তবে আশা করব তারা দ্রুতই হল ছেড়ে পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে যাবে। ‘

কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতা না করেই মার্কেট খোলার ঘোষণার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘দোকানপাট খোলার বিষয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষকে কিছুই জানানো হয়নি। যেহেতু বিষয়টি দুই পক্ষের সহযোগিতার ওপর নির্ভর করছে, তাই বিষয়টি আমাদের জানানো দরকার ছিল। ’

Print Friendly and PDF
ব্রেকিং নিউজঃ