ঢাকা, রবিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মঠবাড়িয়ায় সড়ক বিভাগে কাজ শেষের আগেই চুড়ান্ত বিল প্রদান!

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল, ২০২২ ৭:০০ : পূর্বাহ্ণ

পিরোজপুর প্রতিনিধি: পিরোজপুরের চরখালী -তুষখালী-মঠবাড়ীয়া-পাথরঘাটা সড়কের পিরোজপুর অংশে ড্রেন নির্মাণ কাজ (মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারকে চুড়ান্ত বিল দেয়া হয়েছে। সড়ক বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলী আকবর,উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ অহিদুজ্জামান ও নির্বাহী প্রকৌশলী(বর্তমানে বরিশাল সড়ক বিভাগে আছেন) মাসুদ মাহমুদ সুমন এ বিল দিয়েছেন। আর এখন আর সিসি ড়্রনে নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে যেনতেন ভাবে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়দের দাবী অনৈতিক সুবিধা নিয়ে প্রকৌশলীরা ঠিকাদারকে এ বিল দিয়েছেন।
জানাগেছে, পিরোজপুরের চরখালী -তুষখালী-মঠবাড়ীয়া-পাথরঘাটা সড়কের মঠবাড়িয়া অংশে ১.৬৬কিলোমিটার রিজিড(রাস্তা ঢালাই করন) পেভমেন্ট,২.৪০ কিলোমিটার আরসিসি ড্রেন নির্মাণ কাজ( মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) এবং বরগুনা অংশে ০.৬২৫ কিলোমিটার রিজিড পেভমেন্ট( রাস্তা ঢালাই আরসিসি ঢালাই করন এবং ২০.৩৭ কিলোমিটার বর্ধিত ও মজবুতিকরণ সহ কার্পেটিং কাজ (ডিবিএস বেস কোর্স কাজ) এর ৩৬ কোটি ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যায় ধরে দরপত্র আহবান করা হয়। দরপত্রে অংশ নিয়ে হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড-ওয়েষ্টার কন্সট্রাকশন এন্ড শিপিং কোম্পানী লিমিেিটড জেভি (জয়েন্ট ভেঞ্চার) ৩০ কোটি ৮৭ লাখ টাকায় কাজটি পায়। এ কাজের মধ্যে ড্রেন নির্মাণ কাজ রয়েছে ১০ কোটি ৮১লাখ টাকার। কিন্তুু এ কাজ শেষ করার আগেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে গেল বছরের ২৯ জুন চুড়ান্ত বিল দেয়া হয়েছে। বর্তমানে যেনতেন ভাবে কাজ করা হচ্ছে। কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মাটি মিশ্রিত পাথর। যার ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। আলী রেজা রঞ্জু নামে স্থানীয় এক প্রভাবশালী ব্যাক্তি তার ফেসবুক আইডিতে কাজে মাটি মিশ্রিত পাথর ব্যাবহারের ছবি ভাইরাল করেছেন।
মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি এ কে এম আরিফুল হক বলেন, বর্ষার দিনে বাজার অংশে থাকা সড়কে পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হত। লোকজনের চলাচলে দূর্ভোগের সৃষ্টি হত। আমরা জলাবদ্ধতা দুরীকরনের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। সরকার এ সড়ক সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণের অর্থ বরাদ্ধ দিল। কিন্তু কাজ শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে চুড়ান্ত বিল দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে পিপড়ার গতিতে। মানও খারাপ হচ্ছে কাজের। তিনি দাবী করেন অনৈতিক সুবিধা ছাড়া প্রকৌশলীরা এ বিল দেননি।
মঠবাড়িয়ার সংসদ সদস্য ডাঃ রস্তুুম আলী ফরাজীর জন সংযোগ কর্মকর্তা আলী রেজা রঞ্জু বলেন, ড্রেন নির্মাণে কাদামাটি মিশ্রিত পাথর ব্যাবহার করা সময় আমি তার ছবি ফেস বুকে ভাইরাল করেছি। এরপর তিনি বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ডাঃ রস্তুুম আলী ফরাজী অনেক কষ্ট করে এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্ধ আনেন।এরপর তিনি বলেন, মঠবাড়িয়া বাজার অংশে ড্রেন না থাকার কারনে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে মানুষের ভোগান্তি হত।
কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা উপ- সহকারী প্রকৌশলী আলী আকবরের কাছে ড্রেন নির্মান কাজ শেষ হওয়ার আগেই কেন বিল দিলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন,বিল দেয়া হয়নি। এরপর তাকে বলা হয় ২০২১ সালের ২৯ জুন চুড়ান্ত বিল দিয়েছেন এ প্রমান তো আছে তখন তিনি আর কথা বলেন নি।
এরপর পিরোজপুর সড়ক বিভাগের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী(বর্তমানে বরিশাল সড়ক বিভাগে আছেন) মাসুদ মাহমুদ সুমন এর মুঠোফোনে ফোন দেয়া হলে তিনি ফোন রিসিভি করেননি।
সড়ক বিভাগের বরিশাল জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কেএম আজাদুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অল্প কয়েকদিন হল বরিশালে যোগদান করেছেন বলে জানান। এ সময় তিনি বিষয়টি নিয়ে পিরোজপুর জেলা অফিসে যোগাযোগ করার কথা বলে কৌশলে বিষয়টি এড়িয়ে যান।
পিরোজপুর সড়ক বিভাগের বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ বলেন, চলতি বলতি বছরের ২৬ জানুয়ারী যোগদান করেছি। এ বিষয়ে কোন তথ্যই আমার কাছে নেই।

Print Friendly and PDF
ব্রেকিং নিউজঃ